Breaking News
Home / দেশ প্রেম

দেশ প্রেম

লেখকের প্রেম ১ম পর্ব

লেখকের প্রেম ১ম পর্ব

গতকাল প্রেমিকার মায়ের সাথে তুমুল ঝগড়া করেছি। ঝগড়ার কারণটা খুব তুচ্ছ। কিন্তু মহিলার কাছে এটাই আকাশ-পাতাল কারণ। আমার মতো ছেলের সাথে রাতদুপুরে কথা বলার অপরাধে তিনি তার মেয়ের ফোন কেড়ে নিয়েছেন। দুদিন পর সাবিলা তার এক বান্ধবীর ফোন থেকে আমাকে ফোন করে কাঁদতে কাঁদতে কথাটা জানাল। তার শেষ কথা ছিল, …

Read More »

লেখকের প্রেম ২য় পর্ব

লেখকের প্রেম ২য় পর্ব

ভূতেরা কি প্রেম করে…? তারা কি বিয়ে করে? বাচ্চা নেয়? তাদেরও কি মানুষের মতন যৌনাঙ্গ আছে? সবগুলো চোখ বক্তার দিকে ঘুরে গেল। এখন সিরিয়াস সময় যাচ্ছে। মেয়ের বান্ধবীর সাথে বাবার বিয়ে, ঠিক এই মুহূর্তে অপ্রাসঙ্গিক আলোচনা সাজে না। কিন্তু লিজা প্রায়শই কিসের ভেতর কি -আনবেই। ভদ্রমহিলা চোখমুখ দিয়ে আগুন ছেড়ে …

Read More »

লেখকের প্রেম ৩য় পর্ব

লেখকের প্রেম ৩য় পর্ব

আমি একটা ভাল রকমের শিক্ষা পেয়েছি। আর কখনওই ছোট মেয়েদের টিউশনি হাতে নিব না, ভুলভাবে হাতে নিয়ে ফেললেও, দু’হাত নিমপাতার সাবান দিয়ে ধুয়ে ফকফকে করে ফেলব। পিচ্চি মেয়েগুলো যদি প্রশ্ন করে, আচ্ছা ভাইয়া, বাবু কিভাবে আসে? তাহলে নিজেকে সংযত রাখা কষ্টকর হয়ে যায়। আমি করুণ চোখে আন্টির চোখের দিকে তাকিয়ে …

Read More »

লেখকের প্রেম ৪র্থ পর্ব

লেখকের প্রেম ৪র্থ পর্ব

প্রেমিকার মুখ থেকে তার মা সম্পর্কে একটা সত্য শুনেছি। সত্যটা হল, মহিলা হালিমের লবণ টেস্ট করতে করতে পাতিলের সব হালিম খেয়ে ফেলেন। এই ধরনের মহিলাদের থেকে নিরাপদ দূরত্ব বজায় না রাখলে বিপদ অনিবার্য। আমি দ্বিতীয় শর্তটা বলব কিনা ভাবছি। ওপাশে ভদ্রমহিলা শান্ত গলায় বললেন, দ্বিতীয় শর্ত? আমি গম্ভীর গলায় বললাম, …

Read More »

লেখকের প্রেম ৫ম পর্ব

লেখকের প্রেম ৫ম পর্ব

আমি খুব চিন্তায় পড়ে গেলাম। চিন্তায় পড়ে যাবার মতনই ইস্যু। মেয়েদের ব্লাউজ চুরি করা ক্ষমার অমার্জনীয় অপরাধ। মহিন সাহেবকে এতদিন ভাল মানুষ হিসেবে জেনে এসেছি। এখন তার উপর থেকে সমস্ত বিশ্বাস উড়ে গেছে। ওপাশ থেকে আন্টি কাঁদো কাঁদো গলায় বললেন, বাবা, তোমার আংকেলের চুরি করার মধ্যেও একটা ধারা আছে। যেমন- …

Read More »

লেখকের প্রেম ৬ষ্ঠ পর্ব

লেখকের প্রেম ৬ষ্ঠ পর্ব

প্রেমিকার বাবা পাশের বাসার ভাবিদের ব্লাউজ চুরি করেন। এই অত্যাচার থেকে বাঁচতে প্রেমিকার মায়ের মতন দাজ্জাল মহিলাটাও আমার ভালো বন্ধু হয়ে গেছেন। শুধু তাই নয়। তার মতন কিপটে মানুষটা আমাকে পাঁচ হাজার টাকাও দিয়েছেন। তিনি কেমন কিপটে তা সাবিলার মুখ থেকেই শুনেছি। তিনি নাকি আদা, রসুন বাটার পর হাতে লেগে …

Read More »

লেখকের প্রেম ৭ম পর্ব

লেখকের প্রেম ৭ম পর্ব

আমি হতাশ মুখে সাধুবাবার পেছন পেছন আসছি। সঙ্গী দুজন অচেনা বন্ধু, একজন শান্ত, আরেকজন তাপস। দুজনেই খুব ভাল। আমি এত কষ্ট করে টিউশনির টাকা জমিয়ে লালন বাবার দরবারে এসে যদি তাঁর খাদ্যলোভী মুরিদদের পেছনে খরচ করতে হয়, তবে আমারও এই মুহূর্তে লালন হয়ে যাওয়া উচিত। বাবার সাথে খেতে বসা হয়েছে। …

Read More »

লেখকের প্রেম ৮ম পর্ব

লেখকের প্রেম ৮ম পর্ব

আমি সাধুবাবার মুখের দিকে তাকালাম। এদের নাম কেন সাধু রাখা হয়, জানি না। পবিত্র পাপ -বলেই কি না! রাতে নানা আরেকটা আবদার করে বসলেন। তার জামাকাপড় নাকি অনেক ময়লা হয়ে গেছে। খুব খুশি হতেন, যদি আমরা তা ধুয়ে দিই। এবার আর প্রশ্রয় দেয়াটা বোকামি হবে। মুখের উপর বলে দিয়েছি, আহা …

Read More »

লেখকের প্রেম ৯ম পর্ব

লেখকের প্রেম ৯ম পর্ব

ভদ্রলোক উত্তেজিত ভঙ্গিতে আমার দিকে তেড়ে আসছেন। তাকে অতিসত্বর নিবারণ করার প্রয়োজন দ্যাখে সুপ্তিকা আর আন্টি ধরাধরি করে বসালেন। ভদ্রলোক শান্ত হচ্ছেন না। আমাকে কেন বাসায় আনা হলো, তা নিয়ে সুপ্তিকার সাথে রীতিমত ঝগড়া বাঁধিয়ে ফেললেন। বাউল টাইপ প্রাণীদের যে ঘরে রাখতে নেই, তা নিয়ে রীতিমত নাতিদীর্ঘ একটা বক্তৃতা দিয়ে …

Read More »

লেখকের প্রেম ১০ম পর্ব

লেখকের প্রেম ১০ম পর্ব

আমি চুপ করে ফোন হাতে দাঁড়িয়ে আছি। প্রেমিকার বাবা শ্রেণীর মানুষের সাথে বেশী কথা বলা মানে, খাল কেটে তিমি আনা। ওপাশ থেকে ভদ্রলোক ব্যস্ততার সাথে বললেন, কি বাবা, বল কিছু। আমি চুপ। বল কিছু। আমি নিরুত্তর। বল না কিছু। আমি নৈশব্দের সাথে সতীন। ভদ্রলোক বোধহয় মনেমনে ফুঁসছেন। ফুঁসতে ফুঁসতেই রাজ্যের …

Read More »